Breaking News

সিলেটে আদালত পাড়ায় আইনজীবী ও মানবাধিকার কর্মী সেজে প্রতারনা করতে গিয়ে আটক

নিজে জাহির করেন জনতার সম্মুখে মস্তবড় এক মানুষ হিসেবে কখনো নিজেকে আইনজীবী, সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী আবার কখনো অধ্যাপিকা পরিচয় দিতো।

এসব পরিচয় দিয়েই প্র’তারণা করাই ছিলো তার পেশা। তবে এবার নিজেকে আয়কর আইনজীবী পরিচয় দিয়ে জামিন পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে এক নারীর কাছ থেকে ৪৫ হাজার টাকা নিয়ে বিপাকে পড়লেন লিলি।

এ জন্য তাকে ধরা পড়তে হলো সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্যদের হাতে।বুধবার (২১ এপ্রিল) বিকেল ৪টার দিকে আ’দালতপাড়ার বার হল নং-২ এর সামনে থেকে তাকে আ’টক করেন আইনজীবীরা। লিলি মেজরটিলায় এন.আর টাওয়ারে ৩৫/২ নং বাসায় ভাড়াটে থাকেন।

অ’ভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শংকু রানী সরকার লিলি নিজেকে আয়কর আইনজীবী পরিচয় দিয়ে সিলেটে দীর্ঘ দিন থেকে আইনি সহায়তা দেয়ার নামে প্র’তারণার ফাঁদ পেতে নিরীহ মানুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

গত ১ মাস আগে মিরাবাজারের গৃহকর্মী শিল্পী বেগমের অটোরিকশা চালক ছেলে পুলিশের হাতে গ্রে’ফতার হন। গাড়িতে অ’বৈধ পণ্য পাওয়ায় তাকে বিশেষ ক্ষমতা আইনের মা’মলায় গ্রে’ফতার দেখিয়ে পুলিশ কারাগারে প্রে’রণ করে।

পরবর্তীতে অন্যজনের মাধ্যমে শংকু রানী সরকার লিলির সঙ্গে পরিচয় হয় গৃহকর্মী শিল্পী বেগমের। এ সময় লিলি নিজেকে আইনজীবী পরিচয় দেন এবং শিল্পী বেগমের ছেলেকে জামিন পাইয়ে দেয়ার জন্য ৪৫ হাজার টাকার চুক্তি করেন।

পরে শিল্পী বেগম এক মাসে ৩-৪ কিস্তিতে ভুয়া আইনজীবী লিলিকে ৪৫ হাজার টাকা দিয়ে দেন। কিন্তু লিলি মা’মলার শুনানির তারিখ নিয়ে নানা টালবাহানা শুরু করেন।বুধবার শিল্পী বেগমের ছেলের মা’মলার আরেকটি শুনানির তারিখ ছিলো। ওই দিন জামিন পাইয়ে দেয়ার কথা চ‚ড়ান্ত করেন প্র’তারক লিলি। কিন্তু বুধবারও ছেলের জামিন না হওয়ায় সিলেট বার হল নং-২ এর সামনে লিলির কাছে ৪৫ হাজার টাকা ফেরত চান শিল্পী বেগম। এতে লিলি ক্ষিপ্ত হয়ে শিল্পী বেগমকে মা’রধর শুরু করেন।এ সময় ঘ’টনাস্থলে আইনজীবী ও লোকজন জড়ো হলে শিল্পী বেগম বি’স্তারিত ঘটনা খুলে বলেন। তখন আইনজীবী ও জনতা প্র’তারক লিলিকে আ’টক করেন। এ সময় প্র’তারক শংকু রানী সরকার লিলি উ’ত্তেজিত হয়ে নিজেকে একাধারে আয়কর আইনজীবী, সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী ও বিশ্বনাথ কলেজের অধ্যাপিকা পরিচয় দেন। পরে তাকে পু’লিশের ভয় দেখালে কান্নাজড়িত কণ্ঠে নিজের ভুল শিকার করলে শংকু রানী সরকার লিলিকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়নি।
এ বিষয়ে সিলেট জেলা বার আইনজীবীর সমিতির সভাপতি বলেন, আমরা প্র’তারক মহিলাকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করতাম। কিন্তু সে অপরাধ শিকার করে মাফ চাওয়ায় এবং ভুক্তভোগির টাকা ফেরত দেয়ার শর্তে মুচলেকা দিয়ে তাকে ছেড়ে দেই।

About nishat nishat

Check Also

শনিবার থেকে দিনে ফেরি চলাচল বন্ধ

করোনা বিস্তার রোধে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক শনিবার (৮ মে) থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে দিনের …