Breaking News

সরেজমিন শাল্লা: প্রধান আ’সা’মি স্বাধীন যুবলীগ না হেফাজত

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজে’লার নোয়াগাঁওয়ে হিন্দু ধ’র্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে হা’ম’লা-ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় গ্রামবাসীর পক্ষে দায়ের করা মা’ম’লার প্রধান আ’সা’মি পাশের

দিরাই উপজে’লার নাচনি গ্রামের বাসিন্দা ও সরমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শহিদুল ই’স’লা’ম স্বাধীন।গত শুক্রবার গ্রে’প্তা’রের হওয়া স্বাধীন যুবলীগের নেতা এবং যুবলীগের ওয়ার্ড সভাপতি হিসেবে জানা গেলেও সুনামগঞ্জ জে’লা

যুবলীগ আনুষ্ঠানিকভাবে তা অস্বীকার করেছে।একইভাবে স্বাধীন হেফাজতে ই’স’লা’মের কেউ নন বলেও দাবি করেছে দিরাই উপজে’লা হেফাজতের নেতৃবৃন্দ।
তবে স্বাধীনের চাচা ও নাচনি গ্রামের বাসিন্দা জানফর আলী বলেন,

‘সে [স্বাধীন] আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি।’গ্রামের আরেক প্রবীণ বাসিন্দা আবুল হাশেমও বলেন, ‘যতদুর জানি সে আওয়ামী লীগের লোক।’

স্বাধীনের ভাতিজি লিমা আক্তার বলেন, ‘তিনি [স্বাধীন] যতদিন রাজনীতি করেছেন আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেছেন, ৮-১০ বছর ধরে যুবলীগ করেন, ইউনিয়ন সভাপতি। মোশাররফ [দিরাই পৌরসভা’র সাবেক চেয়ারম্যান], রঞ্জন [দিরাই যুবলীগ সভাপতি] সবাই তাকে চিনেন।’

সরমঙ্গল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এহসান চৌধুরী দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘স্বাধীন ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতা, সরমঙ্গল ৯নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ছিলেন বলে জানি।’ তিনি স্বাধীনকে কখনো হেফাজতে ই’স’লা’মের সমাবেশ বা কোনো অনুষ্ঠানে দেখেননি বলেও জানান তিনি।

হা’ম’লাকারীদের আ’ঘাতে আ’হত ঝুমন দাশের স্ত্রী’ সুইটি চন্দ্র দাশের বাম হাত গলার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখেছেন চিকিৎসক। পেছনে বিছানায় তার ছয় মাসের শি’শু। ছবি: দ্বোহা চৌধুরী

স্বাধীনের পরিবারের সদস্যদেরও দাবি স্বাধীন হেফাজতে ই’স’লা’মের সঙ্গে সম্পৃক্ত না এমনকি নোয়াগাঁওয়ে হা’ম’লার দুদিন আগে দিরাইতে আয়োজিত হেফাজতের সমাবেশেও যাননি স্বাধীন।

যা বলছে যুবলীগ-আওয়ামী লীগ সুনামগঞ্জ যুবলীগের আহ্বায়ক খায়রুল হুদা চপল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘দিরাইতে যুবলীগের কোনো কমিটি নেই এবং স্বাধীন যুবলীগের কেউ না। কেউ নিজে থেকে দাবি করলেই যুবলীগ নেতা হতে পারে না।’

স্বাধীন গ্রে’প্তা’র হওয়ার দিনই সুনামগঞ্জে সংবাদ সম্মেলন করে যুবলীগ। সংগঠনটির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বলা হয় স্বাধীন যুবলীগের কেউ না।তাদের ভাষ্য— ২০০৭ সালে দিরাইয়ে

রঞ্জন রায়কে আহ্বায়ক করে উপজে’লা কমিটি করা হয়েছিল এবং ২০১৫ সালে কেবলমাত্র রঞ্জন রায়কে সভাপতি হিসেবে ঘোষণা করা হয় কিন্তু পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হয়নি।যেখানে উপজে’লাতে ২০০৭ সাল থেকে পূর্ণাঙ্গ কমিটি নেই,

সেখানে ইউনিয়ন বা ওয়ার্ড কমিটি থাকার প্রশ্নই নেই বলে সম্মেলনে জানান যুবলীগ আহ্বায়ক চপল।পরিবারের সদস্যরা দিরাই আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দিরাই পৌরসভা’র সাবেক মেয়র মোশাররফ মিয়া ও দিরাই উপজে’লা যুবলীগ সভাপতি রঞ্জন রায়ের সঙ্গে স্বাধীনের ঘনিষ্টতার দাবি করলেও তারা তা অস্বীকার করেন।

রঞ্জন রায় বলেন ‘যুবলীগে হাজার হাজার কর্মী-সম’র্থক আছে। অনেকেই তো আসে। নির্দিষ্ট করে বলতে পারব না স্বাধীন কখনো এসেছেন কি না।’মোশাররফ মিয়া দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘সরমঙ্গল পৌরসভা’র পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন এবং স্বাধীনকে আমি এই ইউনিয়নের মেম্বার হিসেবেই চিনি। আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে স্বাধীন সম্পৃক্ত না, কোনো কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাও না। সে সম’র্থক হলে সেটা তার ব্যক্তিগত বিষয়, আমা’র জানা নেই।’

নোয়াগাঁওয়ে হামলর দুদিন আগে ১৫ মা’র্চ দিরাই উপজে’লায় হেফাজতে ই’স’লা’ম বাংলাদেশের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী ও যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক সমাবেশে অংশ নেন।মামুনুল হককে নিয়ে পরদিন নোয়াগাঁওয়ের যুবক ঝুমন দাশ আপনের ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে নোয়াগাঁওয়ে সেই রাতে এবং তার পরদিন [১৭ মা’র্চ] সকালে হেফাজত সম’র্থকরা নোয়াগাঁওয়ের পাশের ধারাইন বাজারে সমাবেশ করেন।

হা’ম’লার দিন সকালে সমাবেশ চলাকালীন সমাবেশের একাংশ গ্রামের অ’পর প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ করে হিন্দু সম্প্রদায়ের ৯০টি বাড়িঘর ও সাতটি মন্দির ভাংচুর করে এবং ব্যাপক লুটপাট চালায়।

হেফাজতে ই’স’লা’মের দিরাই উপজে’লার সহ-সভাপতি মা’ওলানা নুর উদ্দিন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘স্বাধীন হেফাজতে ই’স’লা’মের সঙ্গে কোনভাবেই সংযু’ক্ত না এবং এই হা’ম’লা বা তার আগের সমাবেশ হেফাজতে ই’স’লা’মের নেতৃবৃন্দকে না জানিয়ে স্থানীয়রা আয়োজন করে।’তিনি বলেন, ‘হেফাজতে ই’স’লা’মকে ব্যবহার করে কেউ ব্যক্তিগত সুযোগ নিয়ে লুটপাট চালাতে হা’ম’লা করেছে।’

দিরাইয়ে আওয়ামী লীগ-হেফাজতে মিলেমিশেই আছে নোয়াগাঁওয়ে হা’ম’লার দুইদিন আগে দিরাইয়ে আয়োজিত হেফাজতে ই’স’লা’মের কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে হওয়া সমাবেশে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন দিরাই উপজে’লা ও পৌরসভা’র আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ নেতৃবৃন্দ।

সেই মঞ্চ থেকে বক্তব্য দেন দিরাই পৌরসভা’র মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বিশ্বজিৎ রায়। সমাবেশে স্বেচ্ছাসেবকদের একটি দলের নেতৃত্ব দেন পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মিয়া।এমনকি সমাবেশের আগে উপজে’লা আওয়ামী লীগ সভাপতি আজিজুল ই’স’লা’ম বুলবুলকে নিয়ে প্রস্তুতি সভাও করে হেফাজতে ই’স’লা’ম। তিনি এ সমাবেশের আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতাও করেন বলে জানিয়েছেন হেফাজতে ই’স’লা’ম ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

হেফাজতের দিরাই উপজে’লা সহ-সভাপতি নুর উদ্দিন বলেন, ‘হেফাজত রাজনৈতিক সংগঠন না। সব রাজনৈতিক সংগঠনের সঙ্গেই আমাদের সদ্ভাব রয়েছে এবং আম’রা মিলেমিশেই আছি। আমাদের সমাবেশে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা সব ধরনের সহযোগিতা করেছেন।’

এ ব্যাপারে জানতে দিরাই পৌরসভা’র মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি বিশ্বজিৎ রায় এবং পৌর যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মিয়ার মোবাইলে আজ সন্ধ্যার পর একাধিকবার যোগাযোগ করলে তারা কেউ কল রিসিভ করেননি। উপজে’লা আওয়ামী লীগ সভাপতি আজিজুল ই’স’লা’ম বুলবুল হেফাজতের সমাবেশের আগেই বিদেশে যাওয়ায় তার সাথেও যোগাযোগ করা যায়নি।

About jannatul ferdous

Check Also

মামুন সাহেব আমার শরীরটা কিনেছে কেন আল্লাহ্‌ ? মায়ের ডায়েরি নিয়ে ছেলে (ভিডিও)

সিনিয়র রিপোর্টারঃ মামুনুল হক রিসোর্টে জান্নাত আরা জান্নাতকে নিয়ে যাবার পর থেকে একের পর এক …