Breaking News

সম্পদের পাহাড় দিহানের বাবার, দিহানের মায়ের ঘ’নিষ্ঠতা ছিলো প্রভাবশালী এক নেতার সাথে

দিহানের বাবা আব্দুর রউফ সরকার। ঠাকুরগাঁ ও রাজশাহীতে জেলা রেজিস্ট্রারের দায়িত্বপালন শেষে ২০০৯ সালে অবসর নেন।পৈতৃক সম্পত্তি ছাড়াও চাকরিকালীন দুর্গাপুরের কিসমত গণকৈড়, পুঠিয়ার তাহেরপুর, নওগাঁর আত্রাইসহ বিভিন্ন স্থানে কেনেন জমি।

ভূমি অফিসের তথ্য মতে, শুধুমাত্র রাতুগ্রাম মোজায় আছে ৭৮ বিঘা জমি। আছে পুকুর, ফসলি জমিসহ গ্রামের আলিশান বাড়ি। পাশাপাশি রাজশাহী নগরীর পদ্মা আবাসিক, সাগরপাড়ায় কেনেন জমিসহ দুটি ভবন।

গ্রামের লোকদের অ’ভিযোগ দিহানের মা বগুড়ার মেয়ে শিল্পী বেগমের ঘ’নিষ্ঠতা ছিলো বিএনপির তারেক রহমানের সাথে। তার প্রভাব খাটিয়েও করেন অনেক সম্পদ।

তবে দিহানের বড়ভাই সুপ্তের ভ’য়ে ক্যামেরায় কথা বলতে চাননি অনেকে। এলাকাবাসী জানান, তারা মানুষকে সাহায্য-সহযোগিতা করেন। কিন্তু তাদের চরিত্র ভালো নয়। এছাড়াও গরীব মানুষদের মা’মলা ও মোকদ্দমা নিয়ে ফাঁ’দে ফেলেন।

এ নিয়ে খোঁজ নিতে রাতুগ্রামে আব্দুর রউফ সরকারের বাড়ি গেলে তা তালাবদ্ধ পাওয়া যায়। পরে মুঠোফোনে তিনি বলেন, পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রি করেই শহরে বাড়ি করেছেন তিনি।

এলাকায় স্ত্রী ’র বিএনপির রাজনীতির প্রভাব খাটানোর কথা অস্বীকারও করেন তিনি।
সাবেক জেলা রেজিস্ট্রার দিহানের বাবা আব্দুর রউফ সরকার বলেন, আমার তো পৈত্রিক সম্পত্তি আছে। সেগুলো বিক্রি করে রাজশাহী নগরীর পদ্মা আবাসিক এলাকায় বাড়ি করেছি।

তিনি আরো বলেন, আমি ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগ করতাম। আমার ওয়াইফ কী ’ভাবে বিএনপি করে? গ্রামবাসীরা জানায়, বড় ছেলে সুপ্ত মা’দকাসক্ত হয়ে পড়ায় তাকে সুস্থ করতে রাতুগ্রামের বাড়িতে থাকেন আব্দুর রউফ।

About jannatul ferdous

Check Also

আল জাজিরার রিপোর্ট বাংলায়- মোদিবিরোধী বিক্ষোভের পরে বাংলাদেশ ইসলামপন্থী দলটির বিরুদ্ধে

হেফাজতে ইসলামের প্রভাবশালী নেতা গত মাসে ভারতীয় নেতার সাক্ষাতকারের বিরুদ্ধে মারাত্মক বিক্ষোভের জন্য গ্রেপ্তার হওয়া …