Breaking News

মা এখন আসতে পারবনা, ঈদে আসব বাড়িতে, কে জানত তার মনের কথা

শনিবার (২৭ মার্চ) ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হে’ফাজতে ই’সলামের বি’ক্ষোভ মিছিলে পুলিশের গু’লি’তে নি’হ’ত হন সুনামগঞ্জের দিরাইয়ের যুবক বাদল মিয়া (২৬)। ওই দিন দুপুর দেড়টার দিকে তার মায়ের সঙ্গে ফোনে শেষবারের মতো কথা বলেন।

এসময় বাদল মাকে বলে, বৈশাখীতে আসতে পারবো না। টাকা পাঠিয়ে দিবো, জমির ধান কা’টিয়ে নিও। মা বাদলকে বাড়িতে আসার জন্য অনুনয় করাতে বাদল কথা দিয়েছিল, ঈদুল ফিতরে বাড়ি আসবে।

কথাগুলো জানান নি’হ’ত বাদল মিয়ার পিতা দাবির মিয়া। আক্ষেপ করে তিনি বলেন, আমার পুতের বাড়িতে ফেরা হলো না। এদিকে নি’হত বাদল মিয়ার দা’ফন সম্পন্ন হয়েছে। রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় নি’হ’ত বাদল মিয়ার নিজগ্রাম দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের

লৌলারচর মাঠে জানাযা শেষে গ্রামের ক’বরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। বাদল মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি পলিথিন ফ্যাক্টরিতে কাজ করতো।

উল্লেখ্য, গত শনিবার (২৭ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নন্দনপুর বিসিক শিল্প এলাকায় মহাসড়কে মা’দরাসা ছাত্রদের সঙ্গে পু’লিশ ও বি’জিবির সং’ঘর্ষে পাঁচ বি’ক্ষো’ভকারী নি’হ’ত হন। নি’হ’তদের মধ্যে ছিলেন সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের লৌলারচর গ্রামের দাবিড় মিয়ার ছেলে বাদল মিয়া। হয়ত দরিদ্র বাদল মিয়ার অনেক স্বপ্ন ছিল তার পরিবারের ছিল উপার্জন কারী বাদল। বাদলের পরিবারের দায়িত্ব ? বাদলের মায়ের দায়িত্ব করে নিবে ?

About Tahsin Rahman

Check Also

রিমান্ড শেষ রফিকুল ইসলামের

আজ দুপুরে দুই দিনের রিমান্ড শেষে রফিকুল ইসলাম মাদানীকে ফের গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এ …