Breaking News

মামুনুল হক কাণ্ড- ঝর্নার সাবেক স্বামী আটক- ঝর্নার ২ ছেলের ভিডিও ও মামুনুল হক

মাওলানা মামুনুল হক একজন নারীকে নিয়ে রিসোর্টে যাবার পর স্থানীয় যুবলীগ ছাত্রলীগ এর লোকের কাছে আটক হবার পর প্রশাসনের জিজ্ঞসাবাদের পর মুক্তি পেয়ে ফিরে আসেন। এরপর থেকে চলছে একের পর এক গুঞ্জন। পক্ষে বিপক্ষে যে যার মত লিখে যাচ্ছেন কোথাও মিলছে তথ্যসহ কোথাও আবার তথ্য ছাড়া।

মামুনুল হক রিসোর্টে গিয়ে যে নাম লিখিছেন স্ত্রীর তা সাথে থাকা নারীর নাম ছিলনা এইটা স্পষ্ট। তিনিদের ডাকে হাজার হাজার মানুষ আসামী হয়েছেন কেউবা জেলে কেউবা পলাতক অন্যদিকে ১৭টা লাশ। সেই ১৭ পরিবারের কি খোজ খবর নিয়েছিলেন?

এইসব কিছুই না ভেবে চলে গেলেন রিফ্রেশম্যানটে। একবার নিরপেক্ষ বিবেকে ভাবুন রিফ্রেশম্যানটে গিয়েছেন নারীসহ ঐ খবর জানার পর সন্তান হারা মায়ের কি অনুভততি হতে পারে? একের পর এক ভিডিও অডিও ফাঁস হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে জানিনা কোনটা সত্য কোনটা মিথ্যা।

জান্নাত আরা ঝর্না মামুনুল হকের দ্বিতীয় স্ত্রীর প্রথম ছেলের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে কয়েকদিন আগে ভিডিওটা শুনার পর কিছুটা খটকা লাগলো। মামুনুল হকের ঐ ঘটনার পর পর জান্নাত আরার সাবেক স্বামী শহিদুলকে মানে ঐ ছেলের পিতাকে আটক করা হলো তার পরের দিন ছেলের ভিডিও পাবলিশ কিভাবে কি সম্ভব

মামুনুল হককে আটক না করে স্ত্রীর সাবেক স্বামীকে প্রথমেই আটক কেন? সবকিছুর হিসাব মিলাতে গুলক ধাঁদার মধ্যে পরে যাই। কেন সাথে সাথে ঐ নারীর সাবেক স্বামী আটক? পরের দিন ছেলের যে ভিডিও ভাইরাল হয় সেই ভিডিওতে বেশ কিছু উল্টা পাল্টা তথ্য ছিল যেমন একবার বলেছে

আমি তখন বাসায় ঘুমিয়ে ছিলাম না বাহিরা ছিলাম তাহলে সেই কথা কিভাবে শুনলো সেই বাবুটা। ভিডিওতে কথা বলার সময় সামনের দিকে বেশ কয়েকবার তাকানোর মানে কি ছিল ? একজন মায়ের প্রতি বা তার পরিবারের প্রতি অবিচারের প্রতিবাদে একটা ভিডিও বানাতে হলে এমন ইমুশন থাকার কথা ছিলনা। অন্য দিকে ঝর্নার দ্বিতীয় ছেলে দাবি করে একটি ভিডিও দেখলাম যে ভিডিওতে সে বলছে তার ভাইকে কিছু লোক এসে ভিডিও করিয়েছে টাকার লোভ দেখিয়ে। এছাড়া বড় ভাইয়ের কয়েকটা অডিওতে ছোট ভাইকে যেভাবে আছে যে অবস্থা বলেছে সেই ছোট ভাই যে কথা বলেছে ভিডিওতে কোনভাবে মিলাতে পারছিনা হিসাব।

মামুনুল হক শহিদুল ইসলামের বন্ধু বন্ধুর স্ত্রীকে বিয়ে করেছেন তা এখনও সত্যি না মিথ্যা তার পক্ষে আমি যুক্তি দেয়ার মত তথ্য পাইনি। তবে মামুনুল হকের মত একজন আলেম এভাবে এই পরিস্থিতিতে নিজ স্ত্রীকে নিয়ে যাবার পক্ষে ও ১% সমর্থন দিতে পারিনা। উনার ভাবার দরকার ছিল যারা জেলে আছে, হাসপাতালে আছে, পালিয়ে আছে তাদের কথা, তাদের কথা যদি একবার একজন নেতা মন থেকে ভাবতেন তাহলে এভাবে অবকাশ যাপনে যেতে পারতেননা।

About Tahsin Rahman

Check Also

রিমান্ড শেষ রফিকুল ইসলামের

আজ দুপুরে দুই দিনের রিমান্ড শেষে রফিকুল ইসলাম মাদানীকে ফের গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এ …