Breaking News

নিখোঁজ হেফাজত নেতাকে ফেরত চেয়ে যা বললেন বাবুনগরী

হাটহাজারীতে শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে ফেরার পথে গতরাতে ‘নিখোঁজ’ হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদীকে

সুস্থ অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটির আমির ও হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। সোমবার সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন,

মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও চিন্তিত। গতরাত থেকে এখন পর্যন্ত তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

দেশের একজন প্রখ্যাত আলেম ও সচেতন নাগরিক হিসেবে তার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সরকার এবং প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব ছিল। হেফাজত আমির বলেন, অনতিবিলম্বে আজিজুল হক ইসলামাবাদীকে সুস্থ শরীরে আমাদের মধ্যে ফিরিয়ে দিতে হবে।

মারকাজুল কোরআন মাদ্রাসার মুহতামিম মুফতি ইলিয়াস হামিদিসহ আটক হেফাজতের সব নেতাকর্মীর নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। নিরপরাধ মানুষকে এভাবে গ্রেফতার ও হামলা মামলা বরদাশত করা হবে না।

রোববার হাটহাজারী মাদ্রাসায় হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতাদের জরুরি বৈঠকে যোগ দেন ইসলামাবাদী। বৈঠকশেষে শহরের উদ্দেশে রওনা হওয়ার পর তার কোনো খোঁজ মিলছে না। সোমবার দুপুর ১২টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তার কোনো সন্ধান পায়নি পরিবার। তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আটক করেছে কিনা বা গুম হয়েছেন কিনা সেটি নিয়ে সংশয়ে পরিবার।

সোমবার সকালে ইসলামাবাদীর ছোটভাই মুহাম্মদ ইরফানুল হক জানান, রোববার হাটহাজারী মাদ্রাসায় হেফাজতের বৈঠকশেষে মাগরিবের নামাজ পড়ে আমার ভাই মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী চট্টগ্রামের চকবাজারের বাসার উদ্দেশে রওনা দেন। সন্ধ্যা ৭টা নাগাদও তার সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের যোগাযোগ হয়। এ সময় তিনি জানিয়েছেন, বাসার দিকে রওনা হয়েছেন; তার সঙ্গে একজন সফরসঙ্গী রয়েছে।

রাত ৮টার দিকে যোগাযোগ করা হলে তার ব্যবহৃত দুটি মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। সারারাত মোবাইল ফোন বন্ধ ছিল। সম্ভাব্য সব স্থানে খোঁজ নিয়েও তার কোনো সন্ধান পায়নি পরিবার। তবে সোমবার ভোর ৪টা থেকে ইসলামাবাদীর বন্ধ থাকা মোবাইল সচল হলেও ফোন রিসিভ হচ্ছে না। এমতাবস্থায় পরিবারের সদস্যরা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রয়েছেন বলে জানান ইসলামাবাদীর ছোটভাই মুহাম্মদ ইরফানুল হক।

About staff reporter

Check Also

চক্রের পকেটে ৫ কোটি টাকা, ভিসি ৫০ লাখ!

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে বিদায়বেলায় ১৪১ জনকে নিয়োগ দেওয়া উপাচার্যের বিরুদ্ধে একের পর …