Breaking News

জান্নাত আপনার ঘরে! ইন্সট্যান্ট জান্নাতের সাক্ষাত পাবেন: সদ্য সাবেক শিবির সভাপতি

“জান্নাতি হাসির সন্ধান” এমন শিরোনামে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন সদ্য সাবেক শিবির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম! পাঠকদের জন্য শিবির সভাপতি সিরাজুল ইসলামের ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো:

“জান্নাতি হাসির সন্ধান”

১- বাবা মায়ের তৃপ্তির হাসি যে হৃদয় মাঝে কী এক প্রশান্তির জন্ম দেয়, তা মুখে বলে প্রকাশ করা সম্ভব নয়। পৃথিবীতে তাঁদের অকৃত্রিম হাসি জীবনের জন্য নিশ্চয়ই অমূল্য উপহার।

২- মানুষের জীবনচক্র কিছুটা স্পেশাল। শিশু অবস্থায় সে পারিপার্শ্বিকতার ওপরে ডিপেন্ডেন্ট থাকে। সবাই তার প্রতি মায়া মহব্বত প্রদর্শন করে গড়ে উঠতে সহযোগিতা করে। ইন্টেলিজেন্ট প্রাণী হিসেবে সে ধীরে ধীরে অনেক কিছু শিখে।

অন্যের দায়িত্বের অধীনে থাকতে থাকতে এক সময় নিজেকেই অনেক কিছুর দায়িত্ব নিতে হয়। আবার বয়সের সাথে সাথে মনস্তত্ব তথা সাইকোলজি পুনরায় ছোটদের মতো হয়ে যায়।

৩- পিতামাতা সন্তানদের একসময় গার্ডিয়ানশিপ (অভিভাবকত্ব) দিলেও বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে তাঁরা সন্তানদের গার্ডিয়ানশিপের অধীনে নিজেদেরকে বিবেচনা করেন। আগে সন্তানদের নির্দেশ দিয়ে থাকলেও সন্তান পরিণত বয়সে পৌঁছলে সন্তানদের তাঁরা নির্দেশ না দিয়ে বরং তাদের কাছে আবদার করতে চান; কিন্তু মুখ ফুটে বলেন না।

হয়তো তাঁরা ভাবেন, সন্তান তো এটা এমনিতেই বুঝবে অথবা এটা বললে আবার সন্তান তা পূরণ করতে কষ্ট অনুভব করে কিনা! ছোট থাকতে বাচ্চার কথা নিজেরাই যেভাবে বুঝে নিতেন তাঁরা, আজ বড় বয়সে সেই সন্তানও তেমনিভাবে পিতামাতার কথা বুঝবে বলে আশা করেন তাঁরা। সন্তান এই বিষয়টি অনুধাবন না করতে পারলে পিতামাতার সেই অকৃত্রিম হাসিটা থেকে বঞ্চিত থেকে যায় তারা। আর যদি সন্তান পিতামাতার এই সাইকোলজী বুঝে সেটার প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে পারে, তাহলেই সে পিতামাতার মুখে কলিজা ঠান্ডা করা হাসির রেখা দেখতে পায়।

৪- পিতামাতা বৃদ্ধ বয়সে পৌঁছলে তাঁদেরকে আপনি নিজের বাচ্চার মতো মনে করুন। আদর করুন, স্নেহের ভঙ্গীতে সম্মান করুন। তাদেরকে শিশুর মতো মনে করলে আপনি সঠিক কাজটি করতে পারবেন। একইকথা হয়তো তাঁরা বারবার বলবেন, যেমনটা আপনি পিচ্চিকালে তাঁদের কাছে বলতেন; তাঁরা যেমনভাবে বিরক্ত হতেন না, আজ আপনার বিরক্ত না হওয়ার ও আনন্দ উপভোগ করার পালা। উনারা কী পছন্দ করেন, সেটা বুঝে নেয়ার চেষ্টা করুন। পছন্দের সেসব জিনিসের ব্যবস্থা করুন। এতে তাঁদের অকৃত্রিম হাসির উপহার আপনাকে তৃপ্ত করবে। অকৃত্রিম তৃপ্তি। মনে হবে আপনি জান্নাতে চলে গিয়ে যেন সেখানেই অবস্থান করছেন।

৫- ও ভাই, ও আমার বোন, চলুন আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞ হই। তিনি আমাদেরকে পিতামাতার সাইকোলজি অনুসারে ভূমিকা রাখতে নির্দেশনা দিয়েছেন। যেন পিতামাতা বৃদ্ধ অবস্থায় পৌঁছলে আমরা তাঁদের কোন কাজে সামান্যতম বিরক্তি প্রকাশ না করি, যেন ‘উহ’ শব্দটিও উচ্চারণ করে না ফেলি। আল্লাহ তায়ালা সূরা বনী ইসরাইলের ২৩-২৪ আয়াতে তেমনটাই বলেছেন। আর জানেন তো, নবী সা. আমাদের কী বলেছেন? তিনি বলেছেন, “হতভাগা সে, হতভাগা সে, হতভাগা সে, যে ব্যক্তি তার পিতা-মাতা উভয়কে বা একজনকে বৃদ্ধ অবস্থায় পেলো, এরপরও তাদের যত্ন সেবার মাধ্যমে জান্নাতে যেতে পারলো না।” (সহীহ মুসলিম- ৪/১৯৭৮) জান্নাত আপনি কোথায় খুঁজেন! সেটাতো আপনার ঘরেই। ঐ যে আপনার বাবা আর মায়ের মুখে হাসি ফুটান। ইন্সট্যান্ট জান্নাতের সাক্ষাত পাবেন। আর আল্লাহ কবুল করলে তো পরকালীন জান্নাত আপনার অপেক্ষায় প্রহর গুণতে থাকবে….. ইনশাআল্লাহ।

About staff reporter

Check Also

আল জাজিরার রিপোর্ট বাংলায়- মোদিবিরোধী বিক্ষোভের পরে বাংলাদেশ ইসলামপন্থী দলটির বিরুদ্ধে

হেফাজতে ইসলামের প্রভাবশালী নেতা গত মাসে ভারতীয় নেতার সাক্ষাতকারের বিরুদ্ধে মারাত্মক বিক্ষোভের জন্য গ্রেপ্তার হওয়া …