Breaking News

এতটা গাধা নই যে ডিভোর্স না দিয়েই বিয়ে করব: নাসির

বেশ কদিন আগেই দেশজুড়ে আলোচনায় ছিল ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমার বিয়ে। তাদের বিয়ের পর এক ব্যক্তি দাবি করেন, ৯ বছরের কন্যা সন্তানের মা তামিমা তাকে ডিভোর্স না দিয়েই নাসিরকে বিয়ে করেছেন।

পরে নাসির-তামিমা সংবাদ সম্মেলন করে নিজেদের অবস্থান ব্যখ্যা করেন। রবিবার (২১ মার্চ) আবারও নাসিরের মুখে শোনা গেল পুরনো ইস্যু।মিরপুর শেরে বাংলায় রবিবার নাসির গণমাধ্যমকে বলেন,

‘আমি যা-ই করেছি লিগ্যালি করেছি। হয়তো সংবাদ সম্মেলন ডেকে আপনাদের বিস্তারিত দেখিয়ে দেব। এটুকুই শুধু বলি- আমরা এতটা গাধা না যে ডিভোর্স না দিয়ে বিয়ে করব।

আর কী বলব আমি… দেখুন, আমরা সব কাগজপত্র সেভাবে দেখাইনি। ২-৩ জন ইউটিউবার এসব নিয়ে খবর প্রচার করছে আর মানুষজন এতটাই অশিক্ষিত- একতরফাভাবে এসব শুনে মাতামাতি করছে। ’

ব্যক্তিগত জীবনের এসব বিষয় খেলায় প্রভাব ফেলে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে নাসির বলেন, ‘এটা ক্রিকেট মাঠ। এখানে খেলতে আসলে আমার মাথায় বাইরের চিন্তা থাকে না। কোনো খেলোয়াড়েরই থাকে না। বাইরে যাই হোক না কেন, ব্যাটিং-বোলিং করার সময় এসব চিন্তা থাকে না। ’

আরোও পড়ুন:সরকারি ঘােষণাকে কোনাে প্রকার তােয়াক্কা না করে ঢাকার ধাম’রাইয়ের রােয়াইল শহীদ আবুল হােসেন উচ্চ বিদ্যালয়টি শনিবার (২০ মা’র্চ) সকালে খােলা রাখা হয়েছে।

এমন কি বিনা নোটিশে মাইকিং করে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সমবেত করা হয়।
শুধু তাই নয় এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক মাে. আবুল কালাম মাইকে বক্তব্য দিতে গিয়ে

রােয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ২৭ মা’র্চের যৌথ মতবিনিময় সভায় একজন মনােনয়নপ্রত্যাশীর পক্ষে শিক্ষার্থীদের মিছিল নিয়ে যেতে আল্টিমেটাম দেন।
মিছিলে কেউ অংশগ্রহণ না করলে তার জন্য শা’স্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঐ প্রার্থী হলেন, উক্ত বিদ্যাপীঠের সভাপতি প্রফেসর ডা. মাে. আব্দুল মান্নান।
করােনাভাই’রাসে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৩০ মা’র্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার ঘােষণা দিয়েছে সরকার।অ’ভিভাবকরা বলেন,

প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ নিজের আসন পাকাপােক্ত করতে প্রফেসর ডা. মাে. আব্দুল মান্নানের পক্ষে ২৭ মা’র্চ আওয়ামী লীগের যৌথ মতবিনিময় সভায় মিছিল নেয়ার জন্য শনিবার স্কুল খুলে দেন।

এতে স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়নি। আম’রা এর তীব্র নিন্দা জানাই।প্রধান শিক্ষক মাে. আবুল কালাম আজাদ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কথা স্বীকার করে বলেন, আম’রা চাকরি করি।

যেমন সরকারের কথা শুনতে হয় তেমনি স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি কথাও শুনতে হয়। আমাদের নিজের মতে কিছুই করার নেই। সভাপতি আমাকে যা নির্দেশ দিয়েছেন আমি তাই করেছি।

About jannatul ferdous

Check Also

আল জাজিরার রিপোর্ট বাংলায়- মোদিবিরোধী বিক্ষোভের পরে বাংলাদেশ ইসলামপন্থী দলটির বিরুদ্ধে

হেফাজতে ইসলামের প্রভাবশালী নেতা গত মাসে ভারতীয় নেতার সাক্ষাতকারের বিরুদ্ধে মারাত্মক বিক্ষোভের জন্য গ্রেপ্তার হওয়া …