সুখবর পেলো শিক্ষার্থীরা

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে বদলে গেছে শিক্ষা ক্যালেন্ডার। দীর্ঘ সাত মাসেরও বেশি সময় বিদ্যালয়ে যেতে পারেনি কোনো শিক্ষার্থীরা।

এর মধ্যে এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত করেছে সরকার। তবে এমন পরিস্থিতি চলমান থাকলেও যথাসময়ে শিক্ষার্থীদের বাড়িতে নতুন বই পৌঁছে যাবে।

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) চেয়ারম্যান নারায়ন চন্দ্র সাহা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এনসিটিবি সূত্র জানায়,

গত বছর এই সময়ে জেলা পর্যায়ে প্রাথমিকের অন্তত ৮০-৮৫ শতাংশ বই সরবরাহ করা হয়েছিল। কিন্তু এ বছর এখন পর্যন্ত একটি বইও পাঠানো হয়নি।

এ বিষয়ে নারায়ন চন্দ্র সাহা বলেন, রোববার থেকে সারাদেশে বই বিতরণ শুরু হবে। এবং নির্দিষ্ট সময়ের হাতেই প্রতিটি বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য পাঠ্যপুস্তক পৌঁছে যাবে।

তবে এবার বই উৎসব হবে কিনা এই বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি । গতবছর সারাদেশে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত ৩৫ কোটি বই বিতরণ করা হয়েছিল। তবে এবার সারাদেশে প্রায় এক কোটি বই কম বিতরণ করা হবে।

এর মধ্যে ১০ কোটি ২৫ লাখ ৮২ হাজার ৫৫৫টি প্রাথমিক স্তরের। বাকিগুলো মাধ্যমিক, দাখিল ও ইবতেদায়ি স্তরের বই। করোনা পরিস্থিতির কারণে বই কম লাগছে কিনা এর উত্তরে এনসিটিবি চেয়ারম্যান বলেন,

এখন থেকে আমরা অনলাইনে প্রতিটি বিদ্যালয় থেকে কি পরিমাণ বই লাগবে তা জানতে চেয়েছি। এরই প্রেক্ষিতে এ বছর বই কম লাগছে। এর সঙ্গে করোনা ভাইরাসের কোন সংশ্লিষ্টতা নাই বলেও জানান তিনি।

২০২২ সাল থেকে শিক্ষা ব্যবস্থা তথা পাঠ্যপুস্তকে বড় পরিবর্তন আসছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে কাজ করছে। আগামী বছর প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও মাদ্রাসার পাঠ্যবইয়েও বেশ কিছু পরিবর্তন হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *