প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে যা জানাল ৩ জনকে চাপা দেওয়া ট্রাকচালক

ময়মনসিংহের ত্রিশালে মহাসড়কে স্বামী-স্ত্রী ও তাদের মেয়েকে চাপা দেওয়া ট্রাকের চালক রাজু আহমেদ শিপনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

সোমবার (১৮ জুলাই) রাতে ঢাকার সাভার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের মুখপাত্র খন্দকার আল মঈন।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

খন্দকার মঈন জানান, ১৬ জুলাই দুপুরে উপজেলার রাইমনি গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম মেয়ে সানজিদাকে (৬) সঙ্গে নিয়ে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী রত্নার আল্ট্রাসনোগ্রাফি করাতে ত্রিশালে যান।

এ সময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতগতির একটি ট্রাক ময়মনসিংহের দিকে যাচ্ছিল। বিকেল সোয়া ৩টার দিকে ত্রিশালের কোর্ট বিল্ডিং এলাকায় পৌর শহরের খান ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে রাস্তা পারাপারের সময় ট্রাকটি তাদের চাপা দেয়।

এতে ঘটনাস্থলেই জাহাঙ্গীর আলম, রত্না বেগম ও মেয়ে সানজিদা আক্তার নিহত হন। এ সময় রত্না বেগমের পেট ফেটে শিশুটির জন্ম হয়। পরে আহত শিশু সানজিদা ও নবজাতককে উদ্ধার করে ত্রিশাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সানজিদাকে মৃত ঘোষণা করেন। নবজাতককে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

র‌্যাব জানায়, দুর্ঘটনায় নিহত জাহাঙ্গীর আলমের বাবা বাদী হয়ে ময়মনসিংহের ত্রিশাল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-১৪ অভিযান চালিয়ে সোমবার রাতে ঢাকার সাভার এলাকা থেকে ঘাতক ট্রাক চালক রাজু আহমেদ শিপনকে গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ট্রাকচালক তাদেরকে চাপা দেওয়ার বিষয়ে তথ্য প্রদান করেছে।

আল মঈন বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শিপন জানায়, বাবা-মা ও সন্তানকে সে দেখতে পায়নি। ট্রাকে অতিরিক্ত ওজনের মালামাল থাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে বলেও জানান তিনি।এর আগে সে গত ১১ জুলাই থেকে একটানা মালামাল পরিবহন করে আসছিল। এর মধ্যে সে একবার রাজশাহী থেকে আম নিয়ে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে যায়। সেখানে মালামাল আনলোড করে পুনরায় রাজশাহী ফিরে আসে। এরপর গত ১৫ জুলাই চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাট হতে গাড়ির মালিকের আম বোঝাই করে এবং পরবর্তীতে রাজশাহীর নৌহাটা থেকে আরেক দফায় আলু বোঝাই করে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলের উদ্দেশে রাত ১২টায় রওয়ানা করে।

পথে সামান্য বিরতি নিয়ে আবারও একটানা গাড়ি চালাতে থাকে শিপন।বেলা সোয়া ৩টার দিকে ময়মনসিংহের ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ডের কাছে পৌঁছালে রাস্তা পারাপারের জন্য দাঁড়িয়ে থাকা নিহত জাহাঙ্গীর আলম ও তার স্ত্রী-সন্তানকে চাপা দেয় ট্রাকটি। দুর্ঘটনার পর লোকজন ট্রাকটি আটক করে।এ সময় চালক শিপন ঢাকাগামী একটি বাসে উঠে পড়ে। তারপর অপর একটি বাসে করে সে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা পৌঁছায়। সেখান থেকে সে বিভিন্ন জায়গায় আত্মগোপনে থাকে। গতকাল তার পরিচিত একটি ট্রাকে করে সে ঢাকার সাভারে পৌঁছায়। সেখান থেকে রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.