সর্বকালের সেরা দশে সাকিব

0
42

বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলতে না পেরে হতাশ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। দল পারেনি। কিন্তু বিশ্বকাপকে প্রজাপতির হাজার রঙে রাঙিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। ব্যাটিং ও বোলিংয়ে আলোকিত করে সাকিব এখন ক্রিকেট মহাযজ্ঞের ‘পোস্টার বয়’। তিনি এখন ক্রিকেট বিশ্বের ‘সুপার ম্যান’। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ‘বিজ্ঞাপন’।

তার ব্যাট ও বলের সৌকর্যে গোটা বিশ্ব চিনল নতুন এক বাংলাদেশকে। পাকিস্তান ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ শেষ সাকিবদের। বিশ্বকাপ শেষ হলেও বাকি সেমিফাইনাল, ফাইনাল। আইসিসি ঘোষণা করেনি বিশ্বকাপের ‘মোস্ট ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার’ (এমভিপি)-এর নাম। তবে সেরা খেলোয়াড়ের তালিকায় সবার উপরে সাকিব। তিনি বিশ্বসেরা হবেন কি না, সময়সাপেক্ষ। কিন্তু বিশ্বকাপে যে কীর্তি গড়েছেন, তাতে সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারের তালিকায় স্যার ইয়ান বোথাম, ইমরান খান, কপিল দেব, স্যার রিচার্ড হ্যাডলি, জ্যাক ক্যালিসদের চেয়ে পিছিয়ে নয়, বরং উপরেই থাকবেন।

১৯৭৫ থেকে ২০১৯-১২ বিশ্বকাপে একমাত্র সাকিব ৫০০ রান ও ১০-এর উপরে উইকেট নিয়েছেন। পাকিস্তান ম্যাচের আগে আইসিসি সাকিবের একটি ছবি পোস্ট করে টুইট করেছে। সেখানে লিখেছে, ‘সাকিব এমন কিছু ক্রিকেটারের সঙ্গে বসে আছেন, যারা এই বিশ্বকাপে তার চেয়ে ভালো খেলেছে!’ আইসিসির টুইটটি আলোড়ন তুলেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কারণ ছবিতে সাকিব কারও সঙ্গে বসে নেই। ছবিতে কারও সঙ্গে বসে নেই। বেঞ্চের দুই পাশ ফাঁকা। তাহলে? বাংলাদেশ পাকিস্তান ম্যাচের আগে পর্যন্ত যে তিনটি জয় পেয়েছে, সবগুলোর ম্যাচ সেরা সাকিব। পারফরম্যান্স বলছে চলতি বিশ্বকাপে তিনিই রাজা।

‘রেকর্ড বয়’ কাল একটি ক্যাচ ধরলেই নতুন একটি রেকর্ড গড়তেন। ৫ হাজার রান, আড়াইশ উইকেট ও ৫০ ক্যাচ নিয়ে নাম লিখতেন সনত জয়সুরিয়া, শহীদ আফ্রিদী ও জ্যাক ক্যালিসের পাশে। তার পরও যা করেছেন, তাতেই সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারদের তালিকায় সবার উপরের নামটি নিঃসন্দেহে সাকিবের। কাল মাত্র ৭ রান করলে ৩ নম্বর বা তার পরের পজিশনে ব্যাটিং করে সবচেয়ে বেশি রান করার একক মালিক হবেন। ৭ ইনিংসে তার রান ৫৪২। এই পজিশনে সবচেয়ে বেশি রান এখন পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার মাহেলা জয়াবর্ধনের। ২০০৭ বিশ্বকাপে ১১ ম্যাচের ১১ ইনিংসে ৫৪৮ রান করেছিলেন লঙ্কান কিংবদন্তি। সাকিবের পেছনে কুমার সাঙ্গাকারা, রিকি পন্টিং, জ্যাক ক্যালিস, রাহুল দ্রাবিড়রা। ২০১৫ বিশ্বকাপে টানা চার সেঞ্চুরি হাঁকানো সাঙ্গাকারার রান ছিল ৫৪১,  ২০০৭ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার পন্টিং ৫৩৯, দক্ষিণ আফ্রিকার ক্যালিস ৪৮৫, ১৯৯৯ বিশ্বকাপে দ্রাবিড় ৪৬১ রান করেছিলেন। বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল না খেলতে পারলেও সাকিব যে পারফরম্যান্সের দ্যুতি ছড়িয়েছেন, তাতে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবেন ‘সুপার ম্যান’ সাকিব আল হাসান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here