৩০ মিনিট যানজটে ডিআইজি, ওসি প্রত্যাহার

পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন সড়কপথে যাচ্ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

শনিবার সকালে কুমিল্লা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে কুমিল্লার মুরাদনগর হয়ে সেখানে পৌঁছনোর কথা তাঁর।

সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মহাসড়কের মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজারে দীর্ঘ যানজটের কবলে পড়েন ডিআইজি।

কিন্তু ওই সময় সেখানে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসিম কিংবা পুলিশের কোনো সদস্য উপস্থিত ছিলেন না।

এ ঘটনার কিছুক্ষণ পরই মুরাদনগর থানা থেকে ওসি আবুল হাসিমকে প্রত্যাহার করা হয়। প্রত্যাহারাদেশে শনিবার দুপুর ২টার মধ্যেই তাকে মুরাদনগর থেকে প্রত্যাহার করে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ের কন্ট্রোল রুমে সংযুক্ত করা হয়।

শনিবার রাতে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) কাজী আবদুর রহীম। তবে এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

জেলা পুলিশে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কুমিল্লা-সিলেট আঞ্চলিক সড়কপথে মুরাদনগর থানার কোম্পানীগঞ্জ এলাকা দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া যাচ্ছিলেন।

এ সময় মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাস টার্মিনাল এলাকায় তিনি তীব্র যানজটের কবলে পড়েন। প্রায় ৩০ মিনিট তিনি যানজটে আটকা থাকার পর বিষয়টি কুমিল্লা পুলিশ সুপারকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে সাদা পোশাকে রাস্তায় ছুটে আসেন ওসি।

এদিকে শনিবার পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের আদেশের বরাত দিয়ে কুমিল্লা পুলিশ সুপার স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘ওসি আবুল হাসিমকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ের কন্ট্রোল রুমে সংযুক্ত করা হলো। নির্দেশিত কর্মস্থল রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ে শনিবার দুপুর ২টার মধ্যে যোগদানের নির্দেশ দেওয়া হয়। ’ তবে প্রত্যাহারের ওই আদেশে ডিআইজির যানজটে আটকে থাকার কোনো বিষয় উল্লেখ করা হয়নি।

মুরাদনগর থানা থেকে সদ্য প্রত্যাহারকৃত ওসি আবুল হাসিম বলেন, ‘ডিআইজি স্যার এই পথে সকালবেলা ব্রাহ্মণবাড়িয়া যাবেন, এমন কোনো তথ্য আমার কাছে ছিল না। তা ছাড়া এই মহাসড়কের যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশ এবং ট্রাফিক পুলিশ নিয়োজিত ছিল। তার পরও আমি অবগত থাকলে অবশ্যই যানজট নিরসন করে রাখতাম। এ নিয়ে আর কোনো কথা বলতে চাই না। ’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, পুলিশের বদলি কিংবা প্রত্যাহার একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া হলেও পরিদর্শক আবুল হাসিমের প্রত্যাহার একটু ব্যতিক্রম। রেঞ্জ ডিআইজি একটি থানার সড়কপথে যাচ্ছেন অথচ ওসি জানবেন না- এটা হতে পারে না। তাই হয়তো তাৎক্ষণিকভাবে তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.