যানজটে পড়ায় নয়, যে কারণে ওসি প্রত্যাহার- বেরিয়ে এলো আসল সত্য

দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে কুমিল্লার মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল হাসিমকে প্রত্যাহার করে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে।

শনিবার (২০ আগস্ট) কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে তাকে চট্টগ্রামে সরিয়ে নেয়া হয়। জেলা পুলিশের একাধিক সূত্র জানায়,

শনিবার সকালে সড়কপথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া যাচ্ছিলেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। সাড়ে ৮টার দিকে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে পৌঁছালে মুরাদনগর থানার কোম্পানীগঞ্জ বাজারে দীর্ঘ যানজটের কবলে পড়েন তিনি।

আধাঘণ্টারও বেশি সময় তিনি যানজটে আটকে থাকার পর বিষয়টি কুমিল্লা পুলিশ সুপারকে অবহিত করেন। ওই সময় সেখানে মুরাদনগর থানার ওসি আবুল হাসিম কিংবা পুলিশের কোনো সদস্য উপস্থিত ছিলেন না।

পরে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে দুপুরেই ওসিকে মুরাদনগর থানা থেকে প্রত্যাহার করে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ের কন্ট্রোল রুমে সংযুক্ত করা হয়।
পুলিশ সুপার নেছার উদ্দীন আহমেদ (অপারেশন, ডিসিপ্লিন ও প্রসিকিউশন) স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়,

ওসি আবুল হাসিমকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ের কন্ট্রোল রুমে সংযুক্ত করা হলো। নির্দেশিত কর্মস্থল রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ে শনিবার দুপুর ২টার মধ্যে যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে সরিয়ে নেয়ার কোনো কারণ উল্লেখ করা হয়নি।

ওসি প্রত্যাহার নিয়ে চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমি যানজটে পড়েছি সে কারণে নয়, ওসিকে প্রত্যাহার করা হয়েছে কারণ তিনি দায়িত্বে অবহেলা করেছেন। মুরাদপুর কোম্পানীগঞ্জ এলাকায় আমি প্রায় ৪৫ মিনিট যানজটে আটকা পড়ি। আমি খবর নিয়ে জানতে পারি যে, প্রতিদিনই এই সড়কে এমন যানজট লেগে থাকে। আমার গাড়ি বাসের শ্রমিকরা অন্য পথ দিয়ে ঘুরিয়ে পার করে দিয়েছেন। কিন্তু অন্য জনসাধারণের গাড়ি কীভাবে পার হবে? এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ হাইওয়ে (মহাসড়ক)।

তিনি আরও বলেন, এরকম স্কুল বা অফিসের সময় যদি সড়কে এমন যানজট থাকে, হাইওয়ে পুলিশ, ট্রাফিক পুলিশ যেই থাকুক এখানে থানার একটা দায়িত্ব আছে। যেসময়টায় যানজট থাকে সেসময় এখানে দুজন পুলিশ থাকবে যারা যানজট নিয়ন্ত্রণ করবে, গাড়ি নিয়ন্ত্রণ করবে। কিন্তু আমি কোনো পুলিশ সদস্য সেখানে দেখিনি। জনসাধারণের প্রতি দায়িত্ব অবহেলার বিষয়টি আমার নজরে আসায় এবং ওসির দায়িত্ব ঠিকমতো পালন না করায় তাকে তাৎক্ষণিকভাবে বদলি করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত চলবে। গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় পুলিশ না থাকার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ (এসপি, অতিরিক্ত এসপি) দায় এড়াতে পারেন না। এ বিষয়ে তদন্ত হবে। ওসি আবুল হাসিম বলেন, চিঠি পাওয়ার পরই মুরাদনগর থানা ছেড়ে চট্টগ্রামে এসেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.