নিজ স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকার বাড়ি বিয়ের জন্য এসে বিপাকে তরুণী

নরসিংদীর রায়পুরায় স্বামীর ঘর ছেড়ে বিয়ের দাবিতে সামি (১৮) নামের এক প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছে অনশন করছে শান্তা বেগম নামে এক তরুণী (১৮)।

শনিবার সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় পৌরসভার হাসিমপুর এলাকায় এ অবস্থান নেন ওই তরুণী। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত তিন মাস আগে উভয় পরিবারের সম্মতিতে একই গ্রামের সজলের সাথে শান্তা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

স্থানীয় স্কুলে পড়ার সময় চার বছর আগে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের পরও স্বামীর অনুপস্থিতিতে মুঠোফোনে ওই প্রেমিকের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ করতো সে। এ নিয়ে কয়েক দফায় গ্রাম্য সালিসি দরবার হয়।

গত চারদিন আগে সালিসি মিমাংসায় স্বামীর সংসার করবে না বলে তালাক দিয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়ি চলে আসেন তিনি।

এর পর শনিবার সকালে বাবার বাড়ি থেকে ওই প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নেন। প্রেমিককে না পেয়ে বিয়ের দাবিতে অবস্থান করেন। প্রেমিকের পরিবার এ ঘটনার পর ঘরে তালাবদ্ধ করে অনত্র চলে যায়। ওই প্রেমিকও উধাও।

প্রেমিককে না পেয়ে ওই প্রেমিকা বিয়ের দাবিতে রান্না ঘরে অনশনে বসেন। সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে। এ নিয়ে সকাল থেকে দিনব্যাপী এলাকায় জনসাধারণের মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এ সময় প্রেমিক সামির বাড়িতে ভিড় জমান এলাকাবাসী।

প্রেমিকা শান্তা বেগম বলেন, ওর সাথে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক। তাকে আমার সামনে এনে হাজির করেন। বিয়ের পরও প্রতিনিয়ত তার সঙ্গে কথা হতো।

বিয়ে করবে বলে স্বামীর ঘর ছেড়ে তার বাড়িতে অবস্থান নিয়েছি। তাকে না পেলে মরে যাবো তাকেই চাই। আত্মহত্যার হুমকি দেন ওই তরুণী। এ ঘটনার পর থেকে প্রেমিক ও তার পরিবার গা ঢাকা দিয়েছে। এ বিষয়ে জানতে সামি ও স্বজনদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.