সংলাপে দলগুলোর কাছ থেকে পাওয়া মতামত প্রকাশ করলো ইসি

সব দলের ভোটে অংশগ্রহণ, নির্বাচনকালীন সরকার, ইভিএম, সেনা মোতায়েনসহ সংলাপে যেসব বিষয়ে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর প্রস্তাবনা পেয়েছিল নির্বাচন কমিশন (ইসি), তা পর্যালোচনা করে দশ বিষয়ে মতামত তুলে ধরেছে কমিশন।

সোমবার (২২ আগস্ট) এ সংক্রান্ত সার সংক্ষেপ নিবন্ধিত ২৮টি দল, আইন মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়,

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, প্রধানমন্ত্রীর কাযালয়সহ শীর্ষ কর্মকর্তা সংশ্লিষ্টদের পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইসির পরিচালক (জনসংযোগ) ও যুগ্মসচিব এস এম আসাদুজ্জামান এ তথ্য জানান।

সংলাপ সারংক্ষেপে প্রস্তাবগুলোকে দশটি ভাগে ভাগ করে ইসির মতামতও তুলে ধরা হয়েছে।

ভোটে অংশগ্রহণ, ইভিএম, আইন শৃঙ্খলা ও নির্বাচনকালীন সরকার- অন্যতম এ চারটি বিষয়ে ইসির অবস্থান এখানে তুলে ধরা হল।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ চাইলেও যে কোনো দলকে নির্বাচনে অংশ নিতে বাধ্য করতে পারে না এবং সে ধরনের কোনো প্রয়াস নেবে না ইসি।

প্রতিটি কেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় অসামরিক বাহিনীর সদস্যদের সংখ্যা অপ্রতুল হতে পারে। এ কারণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সেনা মোতায়েনের প্রস্তাবটি যৌক্তিক মনে করে ইসি।

ইভিএম ব্যবহারের পক্ষে নিয়ে দলগুলোয় আপত্তি ও সমর্থন দুই রয়েছে। সার্বিক বিষয়ে এখনও স্থির কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেনি ইসি। রাজনৈতিক দল ছাড়াও পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও বিচার বিশ্লেষণ করে ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে ইসি ভিন্নভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের জানানো হবে।

নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়টি রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের বিষয় মনে করে ইসি। অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের প্রয়োজনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্বাচনকালী সরকারের সময়ে ইসির অধীনে ন্যস্ত করতে সংবিধানের আলোকে বিবেচিত হওয়া প্রয়োজন।

নির্বাচনকে অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে সংবিধান ও আইনে দেওয়া ক্ষমতা সততা, সাহসিকতার সঙ্গে প্রয়োগ করার বিষয়ে আশ্বস্ত করে ইসি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল স্বাক্ষরিত ‘ইসির সঙ্গে নিবন্ধিত দলগুলের সংলাপ থেকে প্রাপ্ত মতামত ও পরামর্শ এবং কমিশনের পযালোচনা ও মতামত’ শীর্ষক এ সারংক্ষেপে বলা হয়েছে- মতামতগুলো কমিশন পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও বিচার বিশ্লেষণ করে দেখেছে।

রাজনীতিতে গণতন্ত্রের সুস্থ চর্চা প্রয়োজন…নির্বাচন কমিনও অভিন্ন প্রত্যাশা পোষণ করে। এ অভিন্ন প্রত্যাশা ও বাস্তবায়নে ইসি, সরকার, জনপ্রশাসন, আইন শৃঙ্খলাবাহিনী, রাজনৈতিক দলসহ সবার ঐক্যবদ্ধ ও সমন্বিত প্রয়াস প্রয়োজন।

১৭ জুলাই থেকে ৩১ জুলাই পযন্ত এ সংলাপে ২৮টি দল অংশ নেয়। দুটি দলকে সেপ্টেম্বরের সংলাপে অংশ নেওয়ার সময় দেওয়া হয়েছে। ৯টি দল সংলাপে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থেকেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.