বিএনপির নেতাদের ওপর হামলার ঘটনায় গণঅধিকার পরিষদের বিবৃতি

গ্রামের বাড়ি থেকে ফেরার পথে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লার বুলু ও তার স্ত্রীর ওপর হামলা এবং বনানীতে বিএনপির কর্মসূচিতে হামলা করে তাবিথ আউয়ালসহ বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন গণঅধিকার পরিষদ এর আহ্বায়ক ড. রেজা কিবরিয়া ও সদস্য সচিব নুরুলহক নুর।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দলের গণমাধ্যম সমন্বয়ক ও যুগ্ম-আহ্বায়ক আবু হানিফ স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে তারা এই নিন্দা জানান।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন,‘বিনা ভোটের এই কর্তৃত্ববাদী সরকার আগামীতে ১৪ এবং ১৮ সালের মতো আরেকটি বিনা ভোটের ভোট ডাকাতির নির্বাচন করতে বিরোধী দলের গণতান্ত্রিক কর্মসূচি ও নেতা-কর্মীদের বাড়ি-ঘরে সন্ত্রাসী হামলা চালাচ্ছে।

সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড দেশকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।” হামলা-মামলা করে পৃথিবীর কোন স্বৈরশাসক ক্ষমতায় থাকতে পারেনি উল্লেখ করে বর্তমান সরকারকে ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়ে অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার আহ্বান জানান গণঅধিকার পরিষদের এই দুই নেতা।

অনতিবিলম্নে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লার (বুলু) ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য তাবিথ আউয়ালসহ নেতাকর্মীদের ওপর হামলাকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনারও দাবি জানান নেতৃদ্বয়।

উল্লেখ্য, এদিন বিকেলে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থেকে ঢাকায় ফেরার পথে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লার বুলুর উপর সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের অতর্কিত হামলা চালায়।

এতে বুলু, তাঁর স্ত্রী শামীমা বরকত (লাকী), বেগমগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সদস্যসচিব মহিউদ্দিন ও শরিফ হোসেন আহত হন। একইভাবে সন্ধ্যা পৌঁনে ৮ টার দিকে ঢাকার বনানীতে বিএনপির মোমবাতি প্রজ্বলন কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীদের হামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য তাবিথ আউয়ালসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.