দ্বন্দ্ব নিরসনে বিএনপির বিভিন্ন জেলার নেতাদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক

বরিশাল বিভাগে বিএনপির বিভিন্ন জেলা ও মহানগর কমিটি নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ চলছেই। দ্বন্দ্ব নিরসনে বিভাগের বিভিন্ন জেলা, মহানগরসহ বিএনপির আটটি সাংগঠনিক কমিটি নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন দলটির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু। আজ বুধবার বিকেলে নগরের একটি হোটেলের মিলনায়তনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

দলীয় সূত্র বলছে, বৈঠকে বিভাগের পাঁচ জেলা, বরিশাল উত্তর ও দক্ষিণ জেলা এবং মহানগর কমিটির পাঁচজন করে নেতা উপস্থিত ছিলেন। তবে বৈঠকে মহানগর কমিটির আহ্বায়ক, সদস্যসচিবসহ গুরুত্বপূর্ণ নেতারা উপস্থিত ছিলেন না।

দলীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সম্প্রতি বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও মহানগরে মূল কমিটি ভেঙে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটি নিয়ে পদবঞ্চিত নেতাদের অনেকেই ক্ষুব্ধ।

সূত্র জানায়, বরিশাল মহানগরের পদবঞ্চিত নেতারা ৩ সেপ্টেম্বর ঢাকায় আবদুল আউয়াল মিন্টুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আহ্বায়ক কমিটির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের বিষয়ে বৈঠকে আলোচনাও হয়। তবে বৈঠকে মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান খান, সদস্যসচিব মীর জাহিদুল কবিরসহ তিনজন যুগ্ম আহ্বায়ক অংশ না নেওয়ায় বিস্তারিত আলোচনা হয়নি।

এসব আহ্বায়ক কমিটির নেতারা উপজেলা ও ওয়ার্ড পর্যায়ে বর্তমানে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করছেন। ওই কমিটি নিয়েও দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। চলছে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ। কমিটি ঘিরে বিএনপির রাজনীতি এখন দ্বিধাবিভক্ত। এ পরিস্থিতিতে চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব দ্রুত দ্বন্দ্ব নিরসন করে পুরো শক্তি নিয়ে মাঠে নামতে চাইছেন।

বৈঠকে অংশ নেওয়া অন্তত তিন নেতা জানান, বিভিন্ন জেলা থেকে আগত নেতাদের কাছে দলের অভ্যন্তরীণ ক্ষোভ, দ্বন্দ্বের বিষয়ে শোনেন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা আবদুল আউয়াল মিন্টু। এ সময় তিনি নেতাদের দ্বিধাবিভক্তি ভুলে সবাইকে নিয়ে দলকে শক্তিশালী করার তাগিদ দেন।

তিনি জেলাগুলোতে সাংগঠনিক জটিলতা, কমিটি গঠনে অনিয়ম-পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এবং ভবিষ্যতে দলীয় কর্মসূচি সফল করতে করণীয় নিয়ে নির্দেশনা দেন। কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস আক্তার জাহানের সভাপতিত্বে সভাটি সঞ্চালনা করেন কেন্দ্রীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান।

সভায় মহানগর বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক আলী হায়দারসহ পাঁচজন অংশ নেন। আহ্বায়ক, সদস্যসচিবসহ গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের বিষয়ে কারণ জানতে চাইলে আলী হায়দার বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই।’

কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান বলেন, বিভাগীয় সাংগঠনিক বৈঠকে মহানগর বিএনপির নেতাদের নিয়েও বসার কথা ছিল। তাঁদের এ ব্যাপারে জানানোও হয়। তিনি বলেন, বৈঠকে দলের আগামী দিনের কর্মসূচি, কমিটি গঠন নিয়ে ত্রুটিবিচ্যুতিসহ নানা বিষয়ে নেতাদের জানানো হয়েছে। আবদুল আউয়াল মিন্টু দলের তৃণমূল নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। সবার মতামত শুনেছেন।

সভায় অনুপস্থিত থাকার বিষয়ে মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান খান প্রথম আলোকে বলেন, ৭ সেপ্টেম্বর আবদুল আউয়াল মিন্টু বরিশালে আসবেন, সেটা মহানগরের নেতাদের আগে জানানো হয়নি। বিএনপির ত্রাণ তহবিলের সংগৃহীত অর্থ ত্রাণ কমিটির প্রধান ইকবাল হাসান টুকুর কাছে হস্তান্তরের জন্য তিনি, সদস্যসচিবসহ কয়েকজন নেতা ঢাকায় অবস্থান করছেন।

মনিরুজ্জামান খান আরও বলেন, আবদুল আউয়াল মিন্টুর বরিশাল সফরের কর্মসূচি জানার পর গতকাল ঢাকায় তাঁরা তাঁর সঙ্গে সাক্ষাতে বুধবারের সফর পরিবর্তনের অনুরোধ করেছিলেন। তখন আবদুল আউয়াল মিন্টু মহানগর কমিটির বিষয়ে কিছু দিকনির্দেশনা দিয়েছেন এবং বলেন, বুধবার বরিশালের কর্মসূচিতে তাঁদের না থাকলেও চলবে।

পদবঞ্চিত নেতাদের অভিযোগের বিষয়ে মনিরুজ্জামান বলেন, আবদুল আউয়াল মিন্টু মহানগর নেতাদের এ বিষয়ে কিছু বলেননি। তাঁরা দলীয় কর্মকাণ্ডে অংশ না নিয়ে বারবার অভিযোগ দিচ্ছেন কেন, বুঝতে পারছেন না। তাঁরা সবাইকে ডেকেছেন। দল তো তাঁদের ব্যক্তিগত সম্পত্তি নয়।

আহ্বায়ক কমিটিতে পদবঞ্চিত বিলুপ্ত কমিটির সহসভাপতি মহসিন মন্টু প্রথম আলোকে বলেন, ৩ সেপ্টেম্বর পদবঞ্চিত আটজন নেতা আবদুল আউয়াল মিন্টুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আহ্বায়ক কমিটির কিছু অনিয়ম তুলে ধরেছেন। এর মধ্যে নগরের ৩০টি ওয়ার্ড কমিটি গঠনে তারেক রহমানের নির্দেশনা না মানার অভিযোগ করা হয়। এ ছাড়া মহানগর ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সিটি করপোরেশনের প্রয়াত মেয়র আহসান হাবিবের মৃত্যুতে কোনো স্মরণসভা আয়োজন না করার অভিযোগও করা হয়।

গত বছরের নভেম্বরে বরিশাল মহানগর এবং উত্তর ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত করে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে কেন্দ্রীয় বিএনপি। মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ারসহ ৩২ জনকে নতুন কমিটিতে রাখা হয়নি। এর পর থেকে তাঁরা ঘরোয়াভাবে নানা সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিজেদের অস্তিত্ব ধরে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.