ছোট আপা কি আওয়ামী লীগের পরবর্তী নেতা?

১৩ সেপ্টেম্বর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানার জন্মদিন। আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে পুনরুত্থান যুগের সূচনা হয়েছিলো শেখ হাসিনার মাধ্যমে।

জাতির পিতার মর্মান্তিক মৃত্যুর পর ১৯৮১ সালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিকূল পরিবেশে শেখ হাসিনা বাংলাদেশে আসেন। তারপর তিল তিল করে দিকভ্রান্ত আওয়ামী লীগকে গড়ে তোলেন শেখ হাসিনা।

আজকের আওয়ামী লীগ শেখ হাসিনার অবদান। তিনি জাতির পিতার স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মাণের মূল স্থপতিও বটে। কিন্তু আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক পাড়ায় এখন সব সময় আলোচনা হয় শেখ হাসিনার পর কে?

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বয়স হয়েছে, আগামী নির্বাচন হয়তো তার শেষ নির্বাচন। একান্ত রাজনৈতিক সহকর্মীদের কাছে তিনি এ ধরনের বার্তাই দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন যে, আগামী নির্বাচনের পর তিনি আর নির্বাচন করবেন না, রাজনীতি থেকে হয়তো তিনি অবসরও নেবেন।

আগামী নির্বাচনে যদি শেখ হাসিনা জয়ী হন তাহলে পূর্ণমেয়াদে তিনি ৮০ উত্তীর্ণ হবেন। এই অবস্থায় তিনি রাজনীতি থেকে অবসর নেবেন, এমনটিই স্বাভাবিক।

যদিও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বলছেন যে, শেখ হাসিনা যতদিন থাকবে ততদিনই তিনি আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে থাকবেন এবং দায়িত্ব পালন করবেন। কিন্তু মুখে যাই বলুক না কেন আওয়ামী লীগের মধ্যেও এখন শেখ হাসিনার পর কে, এই আলোচনা বেশ জোরেশোরেই হচ্ছে।

শেখ হাসিনার পর কে, এই আলোচনায় সবচেয়ে বেশি যে নামটি আলোচিত হয় তাহলো শেখ রেহানা। শেখ রেহানা কেবল বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়েই নন, তিনি আওয়ামী লীগের একজন দুঃসময়ের কান্ডারীও বটে।

কঠিন সময়ে আওয়ামী লীগ সভাপতির পাশে দাঁড়ানো, তাকে সাহস যোগানো, তাকে পরামর্শ দেওয়ার নেপথ্যচারিণী নেতা হলেন শেখ রেহানা। শেখ রেহানা আওয়ামী লীগের কোনো পদ-পদবীতে নেই, সরকারের কোনো সুযোগ-সুবিধাও ভোগ করেন না।

তিনি একজন রত্নগর্ভা মা। লন্ডনে বেশিরভাগ সময় থাকেন। তার কন্যা ব্রিটিশ পার্লামেন্টের প্রভাবশালী এমপি। তার ছেলে রেদওয়ান মুজিব ববি একজন মেধাবী তরুণ।

তার ছোট মেয়ে যুক্তরাজ্যে একজন মেধাবী মুখ হিসেবে পরিচিত। এ রকম একটি পরিস্থিতির মধ্যে শেখ রেহানা কি রাজনীতিতে আসবেন? বিভিন্ন সময়ে তাকে রাজনীতিতে আসার আহ্বান জানান জানিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। কিন্তু সে আহবানে তিনি সাড়া দেননি।

কিন্তু সকলেই জানেন যে, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের শেখ হাসিনার পর যিনি সবচেয়ে বেশি চেনেন তিনি হলেন শেখ রেহানা। আওয়ামী লীগের সমস্যা এবং ত্রুটি-বিচ্যুতিগুলো যিনি নির্ভয়ে-নি:সংকোচে আওয়ামী লীগ সভাপতির কাছে তুলে ধরেন তিনি হলেন শেখ রেহানা। যিনি শেখ হাসিনার সবসময় মঙ্গল কামনা তিনি হলেন শেখ রেহানা। এ কারণেই অনেকে মনে করেন, যেহেতু তিনি দীর্ঘদিন শেখ হাসিনার পাশে পাশে আছেন ছায়ার মতো, তাকে আগলে ধরে রাখেন বিভিন্ন দুর্যোগ-দুর্বিপাক ষড়যন্ত্র থেকে সে কারণেই শেখ রেহানা এখন রাজনীতিতে অনেক বেশি পরিপক্ব এবং শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগের হাল ধরার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত ব্যক্তিত্ব। কিন্তু শেখ রেহানা এখন পর্যন্ত রাজনীতিতে আসবেন কি আসবেন না, এ সম্পর্কে কোনো কথা বলেননি। এমনকি সরাসরি রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার ব্যাপারেও তার এক ধরনের অনাগ্রহ আছে বলে জানা যায়। কিন্তু সময় বলে দিবে তিনি রাজনীতিতে আসবেন কিনা। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের কাছে তিনি ছোট আপা হিসেবে পরিচিত এবং জনপ্রিয়ও বটে।

সুত্রঃ বাংলা ইনসাইড
দেখতে লিংকে আসুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.